ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২৪


ডেকে নিয়ে বন্ধুদের সহায়তায় প্রেমিকাকে গণধর্ষন, গ্রেফতার ২

ডেকে নিয়ে বন্ধুদের সহায়তায় প্রেমিকাকে গণধর্ষন, গ্রেফতার ২

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকার আশুলিয়ায় পোশাক শ্রমিক প্রমিকাকে কৌশলে ডেকে নিয়ে বন্ধুদের সহায়তায় গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় পুলিশ দুই জনকে গ্রেফতার করলেও তার প্রেমিক সামিউল ইসলাম পলাতক রয়েছেন।

রবিবার রাতে ধর্ষনের ঘটনার পর সোমবার রাতে নরসিংহপুর এলাকা থেকে প্রেমিকের দুই ধর্ষক বন্ধুকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
মঙ্গলবার সকালে ১৯বছর বয়সী পোশাক শ্রমিক তরুনী বাদী হয়ে প্রেমিক সামিউল ইসলামসহ তিন জনের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের অভিযোগে আশুলিয়ায় থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- আশুলিয়ার নরসিংহপুর এলাকার মৃত জলিল সরকারের ছেলে রানা সরকার (২৫) ও একই এলাকার মৃত জামাল মোল্লার ছেলে আরিফ হোসেন (২৯)।

পলাতক পোশাক শ্রমিক সামিউল ইসলাম মৃধা ওরফে সোহান (২২) আশুলিয়ার নরসিংহপুর এলাকার মঞ্জুরুল ইসলামের বাড়ির ভাড়াটিয়া। তার বাড়ি নাটোর জেলার লালপুরে।

মামলার বিবরন থেকে জানাগেছে, আশুলিয়ার নরসিংহপুর এলাকার একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক ওই তরুনীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে আরেক কারখানার শ্রমিক সামিউল ইসলামের। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ওই তরুনী নরসিংহপুর এলাকায় তার বান্ধবীর বাড়িতে বেড়াতে যায়। পরে রাত ৮টার দিকে বাসায় ফেরার পথে প্রেমিক সামিউল তাকে নরসিংহপুর এলাকায় তার ভাড়া বাসায় ডেকে নেয়। এরপর কৌশলে ওই তরুনীকে নিজ কক্ষে নিয়ে দরজা আটকে দেয় সামিউল।

এসময় কক্ষে আগে থেকেই সামিউলের বন্ধু আরিফ ও রানা অবস্থান করছিল। পরে প্রেমিক সামিউল, তার বন্ধু আরিফ ও রানা ওই তরুনীকে জোরপূর্বক পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় ওই সে চিৎকারের চেষ্টা করলে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় তারা। পরে রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই নারীকে কক্ষ থেকে বের করে দেয়া হলে পরদিন এঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগী।

আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (ইন্টিলিজেন্স) ফজলুল হক জানান, ওই নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগে সোমবার রাতে নরসিংহপুর এলাকা থেকে দুই জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এঘটনায় পলাতক সামিউলকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। একই সাথে ভুক্তভোগী নারীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *