ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৪


আশুলিয়ায় ডিবি পুলিশ পরিচয়ে অপহরণ, আটক ৩

আশুলিয়ায় ডিবি পুলিশ পরিচয়ে অপহরণ, আটক ৩

স্টাফ রিপোর্টার : সাভারের আশুলিয়ায় ডিবি পুলিশ পরিচয়ে অপহরণের পর মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনায় ৩ জনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। এঘটনায় স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দি দিয়েছেন গ্রেফতারকৃতরা।

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) দুপুরে গ্রেফতারদের আদালতে পাঠানো হয়। বিকেলে তারা পৃথক আদালতে স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দি দেয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) ভোরে আশুলিয়ার ভাদাইল এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- নড়াইল জেলা সদর থানার রামলক্ষণপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে আকরাম হোসেন (৩০), ময়মনসিংহ জেলা সদর থানার চর নিলক্ষিয়া গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে ইলিয়াস সরকার ও রংপুর জেলার পীরগাছা থানার কালীগঞ্জ গ্রামের নজির মাস্টারের ছেলে মোতালেব হোসেন বকুল (৩৫)। তারা তিন জনই ভাদাইল ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় ভাড়া থেকে ডিবি পরিচয় দিয়ে অপহরণ করে টাকা হাতিয়ে নিতো।

অপহরণের স্বীকার ধামরাইয়ের হেলাল উদ্দিনের ছেলে আলফাজ উদ্দিন (২৩)। তিনি ওই দিন নাটোর যাচ্ছিলেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১১ অক্টোবর নাটোর যাওয়ার উদ্দেশ্যে মানিকগঞ্জ থেকে বাসযোগে নবীনগরে আসেন। পরে লেগুনাযোগে বাইপাইলের চাপাই ট্রাভেলস কাউন্টারের সামনে আসলে ডিবি পরিচয় দিয়ে গ্রেফতাররাসহ ৪ জন একটি মোটরসাইকেলে উঠিয়ে অজ্ঞাত একটি সবজি ক্ষেতে নিয়ে মারধর করে। পরে তারই ফোন দিয়ে তার বাবার কাছে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। টাকা না পাঠালে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। পরে আলফাজ উদ্দিনের বাবা হেলাল উদ্দিন ২৫ হাজার করে চারটি বিকাশ নম্বর থেকে ১ লাখ টাকা পাঠালে গাজীপুরের সারদাগঞ্জ এলাকায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পর দিন এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগী।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক জয়ন্ত বলেন, অভিযোগ দায়েরের পর তদন্তে নামে পুলিশ। পরে আজ ভোরে ভাদাইলে অভিযান চালিয়ে ৩ জনকে গ্রেফতার করে দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলেও জানান তিনি। তারা মুলত একটি অপহরণ চক্র। ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে তারা অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় করে আসছিলো। এই চক্রের বাকি সদস্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *